0
(0)

মো: মাসুম বিল্লাহ//
চুল আঁচড়ানো:বার বার চুল আঁচড়ানো মাথার ত্বককে এক্সফলিয়েট করার পাশাপাশি আরো তেল উৎপাদনে সহায়তা করে। চাইলে প্লাস্টিক বা হাড়ের চিরুনি ব্যবহার করতে পারেন, যা চুলে তেল সরবারহ করতে, চুলের ফলিকল উন্মুক্ত করতে এবং চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে।খুশকির সমস্যা থাকলে অবশ্যই ভালো মানের পরিষ্কারক শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে। জিঙ্ক প্যারিথিয়ন সমৃদ্ধ প্রসাধনী কিনুন। এটা খুশকি দূর করার উপাদান হিসেবে কাজ করে। আর সাদা দানাদার অংশ একেবারেই দূর করতে সাহায্য করে। তাছাড়া শ্যাম্পু করার সময় মাথা ভালো মতো ধুয়ে পরিষ্কার করুন কারণ মাথায় থেকে যাওয়া বাড়তি প্রসাধনী থেকেও খুশকির সৃষ্টি হতে পারে।মাথার ত্বক এক্সফলিয়েট করা: কথাটা শুনতে নতুন লাগলেও এটা খুশকি দূর করতে খুব ভালো কাজ করে। মাথার ত্বক এক্সফলিয়েট করতে ঘন দাঁতের চিরুনি ব্যবহার করুন। মাথার ত্বকে চিরুনি দিয়ে আঁচড়ানোর ফলে মৃত কোষ দূর হয়। আর মাথার ত্বক সংবেদনশীল হলে ‘হেয়ার মাস্ক’ ব্যবহার করুন। এতে অতিরিক্ত তেল এবং জমে থাকা ময়লা ও প্রসাধনীর বাড়তি অংশ দূর হবে।নিয়মিত চুল পরিষ্কার করা: চুলের গোড়ায় ময়লা জমে বন্ধ হলে খুশকির উপদ্রব হয়। উৎপাদিত ময়লা দূর করতে নিয়মিত চুল পরিষ্কার করা উচিত। সপ্তাহে দু’তিনবার ভালো পরিষ্কারক দিয়ে চুল পরিষ্কার করা এবং মাথার ত্বক মালিশ করা জরুরি।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.