আগৈলঝাড়ায় প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে নৌকায় বসে বাল্য বিয়ে

0
(0)

আগৈলঝাড়া প্রতিনিধিঃ
বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে প্রশাসনের নজরদারির কারণে শেষ পর্যন্ত নৌকায় বসে বড়-কনের বিয়ে পরিয়েছে পুরোহিত। এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বড় বাশাইল গ্রামের যতীন্দ্র নাথ দাসের মেয়ে ও বাশাইল বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী মুক্তা রানী দাস (বৈশাখী) এর সাথে একই উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামের পূর্ণ চন্দ্র গাইনের ছেলে প্রশান্ত গাইনের সাথে পারিবারিক ভাবে অনেক দিন থেকেই বিয়ের কথা চলে আসছিল। অতি সম্প্রতি কনের বাড়িতে বাল্য বিয়ের আয়োজন শুনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল স্থানীয় ইউপি সদস্যকে ডেকে বাল্য বিয়ে বন্ধ করান। গতকাল শুক্রবার বরের বাড়িতে বসে পুরোহিত দিয়ে সামাজিক ভাবে বিয়ের খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল ওই এলাকার ইউপি সদস্য সুভাষ ভক্তকে ফোন করে বাল্য বিয়ে বন্ধ করার নির্দেশ দেন। ইউপি সদস্য সুভাষ ভক্ত বরের বাড়িতে গিয়ে বিয়ের আয়োজন দেখতে পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করেন। ঘটনা জানাজানি হলে দুই পরিবারের ঘনিষ্ট লোকজন বর এবং কনেকে নৌকায় উঠিয়ে বিলের মধ্যে নিয়ে শুক্রবার গোধূলী লগ্নে (সন্ধ্যায়) পুরোহিত দিয়ে বিয়ে পড়ানো হয়। এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল বলেন, বাল্য বিয়ের খবরে পেয়ে তিনি ওই এলাকায় ইউপি সদস্য পাঠিয়েছেন। বাল্য বিয়ের ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.