0
(0)

সবুজ বাংলা ডেস্ক//
বুধবার এক বিবৃতিতে তিনি বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় উদ্ভুত সঙ্কট নিরসনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দ্রুত আলোচনায় বসার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বানও জানান।
বিএনপির মহাসচিব বলেন, “বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল ও কলেজের দুই শিক্ষার্থীর হৃদয়বিদারক মৃত্যুতে দেশজুড়ে মানুষ ক্ষোভে ফেটে পড়লেও তাতে সরকারের বিন্দুমাত্র টনক নড়েনি।
“বেপরোয়া বাসচালকের দ্বারা এই মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে আন্দোলনরত ছাত্র-ছাত্রীদের লক্ষ্য করে গুলি, টিয়ার গ্যাস ও বেধড়ক লাঠিচার্জে যেভাবে ক্ষতবিক্ষত করেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, তা কেবল নিষ্ঠুর স্বৈরশাসকদের দ্বারাই সম্ভব।”
তিনি ‘অবিলম্বে’ আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনায় বসার জন্য সরকারকে আহ্বান জানান।
ফখরুল বলেন, “নৌমন্ত্রী শাজাহান খান, যিনি পরিবহন সেক্টরের একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা, তার আশকারায় দীর্ঘদিন ধরে এই সেক্টরে অরাজকতা লেগেই আছে।
“যখন সমগ্র বাংলাদেশের মানুষ বেদনার্ত, শোকাহত ও ক্ষুব্ধ, তখন ছাত্র-ছাত্রীর লাশ নিয়ে নৌমন্ত্রীর হাসি যেন বিদ্রুপের হাসি।”
সড়কে ফিটনেসবিহীন গাড়ির চলাচলেও শাজাহান খানকে দায়ী করে ফখরুল বলেন, “কিছু প্রশিক্ষণহীন অদক্ষ চালক ও লাইসেন্সবিহীন কমবয়েসী চালক এবং চলাচলে অনুপযুক্ত যানবাহনের প্রাধান্য থাকলে সড়ক-মহাসড়কে মরণঘাতী ঘটনা আশঙ্কাজনক হারে বাড়তেই থাকবে।
“এগুলো প্রাধান্য পাচ্ছে শুধু নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের প্রশ্রয়ে। আমি পরিবহন সেক্টরের বিশৃঙ্খলার উস্কানিদাতা নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের পদত্যাগ দাবি করছি।”
বিবৃতিতে শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল ও কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় দায়ী চালকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিরও দাবি জানান বিএনপি মহাসচিব।
তিনি বলেন, “গতকালও একজন শিক্ষার্থী কুমিল্লায় গাড়িচাপায় নিহত হয়েছে। ক্ষমতা কুক্ষিগত করা জবাবদিহিহীন সরকার শুধু ন্যায়সঙ্গত আন্দোলনকে নির্দয়ভাবে দমন করতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে বলেই অপরাধীরা প্রকাশ্যে আইন নিজের হাতে তুলে নিচ্ছে।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.