0
(0)

সবুজ বাংলা ডেস্ক//
হেলসিংকিতে বিশ্বের অন্যতম দুই শক্তিধর নেতা ডনাল্ড ট্রাম্প ও পুতিনের মধ্যে বৈঠক শুরু হয়েছে। সোমবার স্থানীয় সময় দুপুরের কিছু পরে হেলসিংকির প্রেসিডেন্ট ভবনে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার সরকার প্রধানের মধ্যে এ বৈঠক শুরু হয়। দু’জনই নির্ধারিত সময়ের কিছু পরে প্রেসিডেন্ট ভবনে উপস্থিত হন। ফলে বৈঠক শুরু হতে বিলম্ব হয়। সম্প্রতি ২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপের দায়ে ১২ রুশ গোয়েন্দাকে অভিযুক্ত করে যুক্তরাষ্ট্র। এর প্রেক্ষিতে পুতিনের সঙ্গে নির্ধারিত বৈঠকে যোগ না দিতে ট্রাম্পের প্রতি আহবান জানিয়েছিলেন ডেমোক্রেটরা।
কিন্তু ট্রাম্প তাতে কোন কর্ণপাত না করে একরকম জোর করেই পুতিনের সঙ্গে বৈঠকে বসলেন।
বার্তা সংস্থা এএফপি’র খবরে বলা হয়েছে, বৈঠক শুরুর পূর্বে ট্রাম্প ও পুতিন পরস্পরের সঙ্গে হাত মেলান। অল্প সময়ের জন্য হাজির হন সাংবাদিকদের সামনে। এসময় সফলভাবে বিশ্বকাপ আয়োজন করায় পুতিনকে অভিনন্দন জানান ট্রাম্প। বৈঠকের বিষয়ে ট্রাম্প বলেন, বাণিজ্য থেকে শুরু করে সবকিছু নিয়েই তাদের মধ্যে আলোচনা হতে পারে। তার ভাষায়- ‘পরিস্কারভাবে বলতে গেলে, গত কয়েক বছর ধরে আমাদের মধ্যে সম্পর্ক ভালো যাচ্ছে না। আমরা বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ দুই পারমাণবিক শক্তি। আমি মনে করি, বিশ্ব আমাদেরকে একসঙ্গে দেখতে চায়। ’ তিনি আরো বলেন, ‘অনেকদিন ধরেই আমি এখানে আসি না। তা প্রায় ২ বছরের কাছাকাছি। কিন্তু আশা করি, আমাদের মধ্যে অসাধারণ সম্পর্ক তৈরি হবে।’ জবাবে ট্রাম্পকে ধন্যবাদ জানান পুতিন। সাংবাদিকদের পুতিন বলেন, আমাদের সম্পর্ক ও গোটা বিশ্বের সমস্যা নিয়ে বাস্তবসম্মত আলোচনা করার সময় এসেছে।
বহুল প্রতীক্ষার পর অবশেষে পুতিনের সঙ্গে বৈঠকে বসলেন ট্রাম্প। প্রাথমিক আলোচনা শেষে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসবেন দুই নেতা। তবে বৈঠক শুরুর আগে নিজের পূর্বসুরীদের প্রতি একহাত নিয়েছেন ট্রাম্প। রাশিয়ার সঙ্গে বর্তমান তিক্ত সম্পর্কের জন্য তিনি পূর্বসুরীদের বোকামীকে দায়ী করেন তিনি।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.