0
(0)

রাজু ফকির,স্টাফ রিপোর্টার//
সিরিজ জিততে ছুঁতে হবে ১৯৯ রানের পাহাড়সম লক্ষ্য। চাপের মুখে দাঁড়িয়ে গেলেন রোহিত। করলেন রেকর্ড ছোঁয়া এক সেঞ্চুরি, দলকে এনে দিলেন স্বস্তির এক জয়। ৭ উইকেট ও ৮ বল হাতে রেখে পাওয়া জয়ে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিয়েছে সফরকারী ভারত।
জেসন রয়ের ঝড়ো ইনিংসে আগে ব্যাট করে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৯৮ রান করে ইংল্যান্ড। জবাবে মাত্র ১৮.৪ ওভারেই ৩ উইকেট হারিয়ে ২০১ রান করে ফেলে ভারত। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি হাঁকান রোহিত শর্মা। ভাগ বসান কিউই ওপেনার কলিন মুনরোর করা সর্বোচ্চ টি-টোয়েন্টি সেঞ্চুরির রেকর্ডে।
ভারতের জয়ে বড় অবদান রাখেন পেস বোলিং অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়ারও। প্রথম বল হাতে ৩ উইকেট নেয়ার পর ব্যাট হাতেও মাত্র ১৪ বলে ৩৩ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন তিনি। তার এই ইনিংসেই মূলত ৮ বল হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় ভারত।
অথচ সফরকারীদের ব্যাটিংয়ের শুরুটা হয়েছিল বাজে। মাত্র ২১ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৫ রানে ফেরেন ওপেনার শিখর ধাওয়ান। দলীয় ৬৫ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ১৯ রানে ফেরেন ফর্মের তুঙ্গে থাকা লোকেশ রাহুল। তৃতীয় উইকেট জুটিতেই মূলত ম্যাচ নিজেদের করে নেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মা।
মাত্র ৫৫ বলে ৮৯ রান যোগ করেন এই দুজন। ভারতের জয় যখন দৃষ্টিসীমায় তখন ব্যক্তিগত ৪৩ রানে ফেরেন অধিনায়ক কোহলি। অধিনায়কের বিদায়ে ব্যাটিংয়ে নেমে বাকি কাজ সারেন অলরাউন্ডার হার্দিক। অপরাজিত সেঞ্চুরিতে ৫৬ বলে ১০০ রান করেন রোহিত। ১১ চার ও ৫ ছক্কার মারে সাজান নিজের ইনিংস। হার্দিকের টর্নেডো ইনিংসে ছিল ৪টি চার ও ২টি বিশাল ছক্কার মার।
এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই মারকুটে ব্যাটিং করেছে ইংল্যান্ড। জেসন রয় আর জস বাটলার ৪৭ বলের উদ্বোধনী জুটিতে তুলেছেন ৯৪ রান। ২১ বলে ৩৪ রান করে আউট হন বাটলার। ৩১ বলে ৪ বাউন্ডারি আর ৭ ছক্কায় ৬৭ রান করে দীপক চাহারের শিকার হন জেসন রয়। ওয়ান ডাউনে নামা অ্যালেক্স হেলসও করেন ২৪ বলে ৩০ রান। পরের দিকে জনি বেয়ারস্টো দলকে এগিয়ে নেয়ার দায়িত্বটা ভালোভাবে পালন করেছেন। ইংলিশ দলের উইকেটরক্ষক এই ব্যাটসম্যান ১৪ বলে ২টি করে চার-ছক্কায় খেলেন ২৫ রানের একটি ইনিংস।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.