কমলগঞ্জে কালবৈশাখী ঝড়ে বিধ্বস্ত বাড়িঘরসহ লন্ডভন্ড বিদ্যুৎ ব্যবস্থা

0
(0)

জয়নাল আবেদীন,কমলগঞ্জ//
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ওপর দিয়ে মঙ্গলবার ভোরে থেকে দফায় কালবৈশাখী ঝড় ও শিলা বৃষ্টিতে কাঁচা ঘর বাড়ি, রেল লাইনের উপর গাছ পড়ে ট্রেন ৬ঘন্টা আটকা পড়ে। প্রায় ৫ হেক্টর জমির বোরো ফসল ও সবজি ক্ষেত বিনষ্ট হয়েছে। ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত পুরো উপজেলায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। গতকাল (৮ মে) বুধবার দুপুরে সিলেটের সাথে ট্রেন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার দু’দফায় ৬ ঘন্টা পর ফের চালু হয়েছে।
উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখাযায়, কালবৈশাখি ঝড়ে উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের উত্তরভাগ, আধকানি, মধ্যভাগ, বনগাঁও, জালালপুর গ্রামে প্রায় ১০টি ঘর সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত ও প্রায় ২৫০টি ঘর আংশিক বিধ্বস্ত হয়েছে। এছাড়া সহ¯্রাধিক পরিমাণ গাছগাছালি ভেঙ্গে ও বিভিন্ন এলাকার প্রায় ৫ হেক্টর পরিমাণ বোরো ফসল ও সবজি ক্ষেত নিমজ্জিত হয়। লাউয়াছড়ায় পাহাড়ি এলাকায় চট্রগ্রাম থেকে সিলেটগামী আন্তনগর উদয়ন ট্রেনের ইঞ্জিনের উপর গাছ পড়ে ভোর পৌণে ৫টা থেকে সিলেটের সাতে সারা দেশের ট্রেন যোগাযোগ ৬ ঘন্টা বন্ধ থাকার পর আবার স্বাভাবিক হয়েছে। ট্রেন আটক পড়ায় সহ¯্রাধিক যাত্রী ভোগান্তির শিকার হন। সংস্কার কাজ শেষে দুপুর সোয়া ১ টায় ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়ে উঠে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মাধবপুর ইউনিয়নের পাত্রখোলা, মাধবপুর চা বাগান সহ বস্তির প্রায় ৬০টি ঘর আংশিক বিধ্বস্ত হয় ও শত শত গাছ ভেঙ্গে পড়ে। গত তিনদিনে উপজেলায় ২২টি বৈদ্যুতিক খুঁটি ভেঙ্গে পড়ে এবং প্রায় দেড়শ ফুট তার ছিড়ে বিনষ্ট হয়। বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন উপজেলার ১৪টি চা বাগানের কারখানা সমুহে চায়ের উৎপাদন মারাত্মক ব্যাহত হয়। মঙ্গলবার ভোর থেকে পুরো উপজেলায় বিদ্যুৎ সঞ্চালন ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে পড়ে। দুপুরে উপজেলা সদর ও শমশেরনগরসহ কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হলেও এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিদ্যুৎ আসা যাওয়া করছে। অপরদিকে ভারী বর্ষন ও শিলা বৃষ্টির কারনে ফসলের ব্যাপক ক্ষতিসাধিত হয়। পাহাড়ি ঢল নেমে নি¤œাঞ্চলে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে।
আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবদাল হোসেন, মাধবপুর ইউপি চেয়ারম্যান পুষ্প কুমার কানু কালবৈশাখি ঝড়ে বাড়িঘর বিধ্বস্ত, বোরো ফসল নিমজ্জিত ও অসংখ্য গাছগাছালি ভেঙ্গে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করে ক্ষয়ক্ষতির তালিকা তৈরি করছেন।
মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কমলগঞ্জ আঞ্চলিক কার্যালয়ের এজিএম (কম) গোলাম ফারুক বলেন, গত তিন দিনে কালবৈশাখি ঝড়ে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ২২টি বৈদ্যুতিক খুঁটি ভেঙ্গে পড়ে এবং প্রায় দেড়শ’ ফুট বৈদ্যুতিক তার ছিড়ে বিনষ্ট হয়। ন্যাশনাল টি কোম্পানীর মাধবপুর চা বাগান ব্যবস্থাপক সফিকুল ইসলাম মুন্না বলেন, কালবৈশাখি ঝড়ে তার ছিড়ে যাওয়ার কারনে মাধবপুর, পাত্রখোলা, কুরমা, চাম্পারায় চা বাগানে কারখানা বন্ধ হয়ে পড়ে। ফলে উৎপাদনে মারাত্মক ক্ষতিসাধন হয়।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.