আগৈলঝাড়ায় বিদ্যুতায়িত হয়ে আহতর ঘটনায় শালিশ বৈঠকে হামলা

0
(0)

আগৈলঝাড়া প্রতিনিধিঃ
দেড় মাস যাবত মৃত্যুর সঙ্গে হাসপাতালে পাঞ্জা লড়ছে আগৈলঝাড়ায় বিদ্যুতায়িত হয়ে আহত কাঠ মিস্ত্রী সুমন রায়। অভিযুক্তর চিকিৎসা সহায়তার আশ্বাসের পরেও সহায়তা না দেয়ায় স্থানীয়ভাবে ডাকা শালিশ বৈঠকে অভিযুক্তর পক্ষের হামলায় ৫জন আহত হয়েছে।
শালিশ বৈঠক ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রাজিহার ইউনিয়নের কান্দিরপাড় গ্রামের হরিহর রায়ের ছেলে গোপাল রায় গত ২ ফেব্রুয়ারি তার মুলা ক্ষেতে রাতের আধারে কাউকে না জানিয়ে তারের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে রাখে। ৩ তারিখ খুব ভোরে স্থানীয় কৃষক কালাচাঁদ রায়ের ছেলে কাঠ মিস্ত্রী সুমন রায় (২০) ওই বিদ্যুতায়িত তারে জড়িয়ে গুরুতর আহত হয়। সুমনকে উদ্ধার করতে গিয়ে ওই বাড়ির বাসুদেব রায়ের মেয়ে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী বন্যা রায়ও বিদ্যুতায়িত হয়ে আহত হয়। স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আহত দু’জনকে উদ্ধার করে গুরুতর আহতাবস্থায় সুমনকে বরিশাল শেবাচিম হাসাপাতালে ভর্তি করে। ওই ঘটনায় অভিযুক্ত গোপাল রায় আহত সুমনের চিকিৎসায় আর্থিক সহায়তা দেয়ার আশ্বাস দিলেও দেড় মাস যাবত হাসপাতাল বেডে মৃত্যু যন্ত্রনায় ছটফট করা সুমনের চিকিৎসায় অভিযুক্ত গোপাল রায় কোন আর্থিক সহায়তা দেয়নি। গোপালের সহায়তা না দেয়ায় রবিবার সন্ধ্যার পর আহত সুমনের বাড়িতে স্থানীয় হরি মোহন গাইন, হরিদাস গাইন, রনজিৎ বৈরাগী, পরিমল সেন, কিরণ বেপারী, কৃষ্ণ বেপারী, জীতেন মুন্সি শালিশ বৈঠকে বসেন। ওই শালিশ বৈঠকে হাসপাতালে ভর্তি অসহায় সুমনের চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহয়তা দিতে বলায় অভিযুক্ত গোপাল রায়, তার আত্মীয় চাঁদশী গ্রামের পরিমল মন্ডলসহ তার পক্ষের লোকজন হামলা চালিয়ে হরবিলাস মুন্সি (৩৫), সজল মুন্সি (২৫), কমল রায় (২৮), বাসুদেব রায় (৪০) এর উপর হামলা চালিয়ে আহত করে। এসময় অভিযুক্ত গোপাল রায়ও প্রতিপক্ষের হাতে আহত হয়। আহতদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এদিকে হতদরিদ্র সুমনের বাবা কালা চাঁদ রায় ছেলের চিকিৎসায় সহায় সম্বল হারিয়ে এখন নিঃস্ব হয়ে পরেছেন।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.