স্বরূপকাঠিতে স্বামী ও তার প্রেমিকার বিরুদ্ধে স্ত্রীর মামলা

0
(0)

হযরত আলী হিরু, পিরোজপুর প্রতিনিধি ॥
পিরোজপুরের স্বরূপকাঠির দৈহারি ইউনিয়নে পরকিয়ায় বাঁধা দেয়ায় স্ত্রীকে মারধোর ও কুপিয়ে যখম করার ঘটনায় স্বামী ও তার কথিত প্রেমিকার বিরুদ্ধে মামালা দায়ের করা হয়েছে। আজ শুক্রবার নির্যাতনের শিকার গৃহবধু হনুফা বাদী হয়ে নেছারাবাদ থানায় ওই মামলা দায়ের করেন। গত বুধবার রাত নয়টার দিকে সাত সন্তানের জননী হনুফা বেগম স্বামী জাহাঙ্গীরকে কোথাও খুঁজে না পেয়ে স্বামীর প্রেমিকা কোহিনুরের ঘরে যায়। সেখান তার স্বামী জাহাংগীরকে কোহিনুরের ঘরে আপত্তিকর অবস্থায় তিনি দেখে ফেলেন। স্বামীকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে হনুফা তার দেবর ইউপি সদস্য আল আমিনসহ প্রতিবেশীদের কাছে বিচার দাবী করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে লম্পট জাহাঙ্গীর ও তার প্রেমিকা কোহিনুর এবং কোহিনুরের মেয়ে কুলসুম হনুফাকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। এক পর্যায় উত্তেজিত কোহিনুর দা দিয়ে হনুফার বাম পায়ের হাটুর নিচে কোপ দেয়। এ সময় হনুফা চিৎকার করলে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে স্বরূপকাঠি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দৈহারি ইউনিয়নের কাটা দৈহারি ৯ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা সাত সন্তানের জনক জাহাঙ্গীর ও তার স্ত্রী হনুফা বেগমের সুখের সংসার ছিলো। গত ৫ বছর পূর্বে একই এলাকার মোহসিন হাওলাদার তার চার সন্তান রেখে মারা যান। মোহসিন মারা যাওয়ার পর তার স্ত্রী কোহিনুর বেগমের সাথে অবৈধ সম্পর্ক স্থাপন করে জাহাঙ্গীর। স্ত্রী বাঁধা দিতে গেলে তাকে সংসার ছেড়ে চলে যাওয়ার হুমকি দেয় জাহাঙ্গীর। অনৈতিক সম্পর্কের কারনে এলাকায় বেশ কয়েকবার সালিশ বৈঠকে তাদেরকে শাস্তি দেয়া হয়েছে বলেও জানান ওই এলাকার বাসিন্দা মো. মাসুদ ফকির। ঘটনার দিন এ সব বিবরন জানিয়ে জাহাঙ্গীরের আপন ভাই ইউপি সদস্য আল আমীন নেছারাবাদ থানায় তার ভাই জাহাংগীর ও ভাইয়ের প্রেমিকা কোহিনুর বেগমসহ তিনজনের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। কাটা দৈহারি ৯ নং ওয়ার্ডের ইউ পি সদস্য আল আমীন বলেন, আমার ভাইকে অনৈতিক এ সম্পর্ক থেকে রেড়িয়ে আসার জন্য তাকে অনেক অনুরোধ করেও তাকে সুপথে ফেরাতে পারেননি। এ ব্যপারে নেছারাবাদ থানার (ওসি) কে এম তরিকুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে অতি শীগ্রই আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.