গৌরনদীতে প্রকাশ্যে দিবালোকে ডিবি পরিচয়ে মা ছেলেকে মাইক্রোবাসে তুলে টাকা ছিনতাইকালে মাইক্রোবাসসহ ৫ ছিনতাইকারী গ্রেফতার

0
(0)

আবদুল্লাহ আল নোমান ও শেখ রায়হান শাওন স্টাফ রিপোর্টারঃ
বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বেজজগাতি বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন সুইজ হাসপাতালের সামনে বসে বৃহস্পতিবার দুপুরে ডিবি পুলিশ পরিচয়য়ে প্রকাশ্য দিবালোকে একটি দরিদ্র পরিবারের মা ছেলেকে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে ২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা ছিনতাই করে পালানোর সময় একটি ছিনতাইকারী চক্রের ৫ সদস্য গোপালগঞ্জের কোটালী পাড়া উপজেলার ভাংগার হাট ক্যাম্প পুলিশের হাতে আটক হয়েছে।
এ সময় ছিনতাইকৃত টাকাসহ মাইক্রোবাসটির চালক ও ছিনতাইকারী চক্রের অপর এক সদস্য পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। এ ঘটনায় কোটালী পাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
গৌরনদী মডেল থানা সূত্রে জানাগেছে, গৌরনদী উপজেলার খাঞ্জাপুর গ্রামের মৃত আব্দুল হাকিম হাওলাদারের স্ত্রী খোদেজা বেগম (৬০) ও তার ছেলে কায়েস হাওলাদার (৩৪) বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে সোনালী ব্যাংক টরকী বন্দর শাখা থেকে নগদ ২ লক্ষ টাকা উত্তোলণ করেন। এ সময় তাদের সাথে আরো ৮০ হাজার টাকা ছিল। উক্ত টাকা নিয়ে তারা পায়ে হেটে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের পাশ ধরে নিজ বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। তারা দুপুর দেড়টার দিকে মহাসড়কের বেজজগাতি বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন সুইজ হাসপাতালের সামনে পৌঁছলে চালকসহ ৭ জন আরোহী নিয়ে একটি সাদা মাইক্রোবাস আড়াআড়ি করে তাদেরকে ব্যারিকেট দেয়।
এরপর তারা নিজেদেরকে ডিবি পুলিশের পরিচয় দিয়ে মা-ছেলেকে মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। এ সময় মটরসাইকেলযোগে ঘটনা স্থল অতিক্রম করছিলেন গৌরনদী মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই সগির হোসেন। তিনি মাইক্রোবাসটির আরোহীদের চ্যালেঞ্জ করলে তারা দ্রত সেখান থেকে শটকে পড়ে। পরবর্তীতে এসআই সগির হোসেন ওয়ার্লেস যোগে বিভিন্ন থানায় খবর দিলে আসপাশের থানাগুলো মহাসড়কে চেকপোষ্ট বসায়। ছিনতাইকারী চক্রটি এ ঘটনা টের পেয়ে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের ভূরঘাটা থেকে মাদারীপুরের ডাসার এলাকার ভেতর দিয়ে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ার দিকে ঢুকে পড়ে। পথিমধ্যে ভাংগার হাট ক্যাম্পের কিছুদুরে তারা মাইক্রোবাস থেকে মা ছেলেকে ছুড়ে ফেলে পালানোর চেষ্টা চালায়। এ সময় ভাংগার হাট ক্যাম্পের এসআই আলী আকবর মাতুব্বর, এএসআই রবিন মজুমদার রিক্সাভ্যান ও মটরসাইকেল দিয়ে ব্যারিকেট দিয়ে মাইক্রো বাসটি আটক করে।
গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার ভাংগার হাট ক্যাম্পের এসআই আলী আকবর মাতুব্বর জানান, তারা ছিনতাইকারীদের ৫ জনকে আটক করেছেন, তারা হলেন, মাদারীপুর জেলার সদর থানার উত্তর দুধখালী গ্রামের আয়নাল হাওলাদারের ছেলে সুমন হাওলাদার (৩১), একই গ্রামের মোসলেম হ্ওালাদারের ছেলে সিরাজ হাওলাদার (৩৮), একই জেলার শিবচর থানার নাওড়া গ্রামের জাহাঙ্গীর ফরাজীর ছেলে রাসেল ফরাজী (২৮), শরিয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ থানার পুটিজুরি গ্রামের মৃত মজিদ হাওলাদারের ছেলে মাহাবুব আলম (৩৯), নিলফামারী জেলার ডুমার থানার পশ্চিম চিকুনমাটি নওয়াপাড়া গ্রামের সালমান আলীর ছেলে ফারুক রানা (২৭)। এ সময় পুলিম তাদের কাছ থেকে নগদ ২৭ হাজার টাকা, ১ জোড়া হ্যান্ডকাপ, একটি ছোট ওয়াকীটকী, ২টি ইংরেজিতে ডিবি লেখা এ্যাপ্রোন, ৩টি মোবাইল ফোন সেট উদ্ধার ও তাদের ব্যাবহৃত ঢাকা মেট্রো-চ-১১৮১৪৯ নম্বরের একটি সাদা রংয়ের মাইক্রোবাস আটক করে।
গৌরনদী মডেল থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই সগির হোসেন জানান, দরিদ্র খোদেজা বেগম ও তার ছেলে কায়েস হাওরাদার সরকারের পল্লী দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশন (পিডিবিএফ) থেকে বৃহস্পতিবার ওই দুই লক্ষ টাকার লোন তুলেছিলেন। সোনালী ব্যংক টরকী বন্দর শাখা থেকে লোনের চেক ভাঙ্গিয়ে তারা মা ছেলে মিলে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হন। পথিমধ্যে ওই ছিনতাইকারী চক্রটির কবলে পড়েন। গত ২১ ডিসেম্বর দুপুরে একই মহাসড়কের গৌরনদী উপজেলার কসবা আল্লাহর মসজিদ বাসষ্ট্যান্ডের কাছে বসে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ওই চিনতাইকারী চক্রটি প্রকাশ্য দিবালোকে তালুকদার জলিল নামের এক ব্যবসায়ীর ৩ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা ছিনতাই করে পালিয়েছিল। ওই মামলায় সোন এ্যারেষ্ট দেখিয়ে শিগ্রই তাদেরকে গৌরনদী থানায় এনে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হরে। ##

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.