গৌরনদী হাইওয়ে পুলিশের হাতে ১০হাজার ৯’শ পিসের বড় ইয়াবার চালান আটক ॥ গ্রেফতার ১

0
(0)

আমিনা আকতার সোমা গৌরনদী (বরিশাল) ,
বরিশালের গৌরনদী হাইওয়ে থানা পুলিশ গতকাল বুধবার সকালে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের মাহিলাড়া এলাকা থেকে ১০হাজার ৯’শ পিস ইয়াবার একটি বড় চালান আটক ও ইয়াবার চালান পাচারকারী বরিশাল মহানগরীর আমীর কুটির এলাকার বেকারী ব্যবসায়ী মতিউর রহমান হাওরাদারের ছেলে সালমান হোসেন ইমরান (২৫)কে গ্রেফতার করেছে। আটক হওয়া ইয়াবার মুল্য প্রায় ৩২ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা। স্মরন কালের ইতিহাসে গৌরনদীতে বরিশাল ঢাকা মহাসড়ক থেকে হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক হওয়া এটিই সর্ব বৃহত ইয়াবার চালান।
পুলিশ সুত্রে জানাগেছে, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে গৌরনদী হাইওয়ে থানার ওসি মোঃ সাহাদাৎ হোসেনের নেতৃত্বে এস,আই অশোক চন্দ্র তালুকদার, এ,এস,আই আসাদুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ গতকাল সকাল ৭টার দিকে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কে উপজেলার মাহিলাড়া বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন উত্তর পাশের মোবাইল টাাওযার এলাকায় চেক পোষ্ট বসান। সকাল ৭টা ১০মিনিটের দিকে বরিশাল ল ১১-৩৫৩১ নম্বরের একটি কালো-লাল রংয়ের বাজাজ পালসার মটরসাইকেল যোগে পিঠে ঝোলানো একটি ব্যাগের ভেতরে প্যাকেটকৃত ইয়াবার চালানটি নিয়ে বরিশাল মহানগরীর আমীর কুটির এলাকার বেকারী ব্যবসায়ী মতিউর রহমান হাওরাদারের ছেলে সালমান হোসেন ইমরান (২৫) ওই এলাকা অত্রিক্রম করছিল। পুলিশ তখন তার গতিরোধ করে পিঠে ঝোলানো ব্যাগের ভেতরে তল্লাসী চালিয়ে ১০ হাজার ৯’শ পিস এর বড় ওই ইয়াবার চালানটি আটক করে। এরপর পুলিশ আটককৃত ইয়াবাসহ ইয়াবার চালান পাচারে ব্যবহৃত মটরসাইকেলটি জব্দ ইয়াবার চালান পাচারকারী ইমরানকে গ্রেফতার করে।
গৌরনদী হাইওয়ে থানার ওসি মোঃ সাহাদাৎ হোসেন জানান, স্মরন কালের ইতিহাসে গৌরনদীতে বরিশাল ঢাকা মহাসড়ক থেকে হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক হওয়া এটিই সর্ব বৃহত ইয়াবার চালান। এর আগে এ মহাসড়ক থেকে এখানে হাইওয়ে পুলিশের হাতে এতবড় ইয়াবার চালান আর আটক হয়নি। আটক হওয়া ইয়াবার মুল্য প্রায় ৩২ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা। গ্রেফতার হওয়া ইমরান পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে প্রথমে নিজেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বলে পরিচয় দেয়। তার কাছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইডি কার্ড চাওয়া হলে সে দেখাতে ব্যার্থ হয়। তার ব্যাগের ভেতরে ইয়াবার চালান পাওয়ার পর সে পুলিশকে জানায়, ব্যাগের ভেতরে কি আছে তা সে জানেনা। তার এক বন্ধু তাকে ব্যাগটি দিয়ে সেটি মাওয়া ফেরীখাটে অপেক্ষমান জনৈক ব্যক্তির কাছে পৌছে দিতে বলেছে। তাই সে ব্যাগটি নিয়ে নিজের মটরসাইকেল যোগে মাওয়া ঘাটে যাচ্ছিল। অপরদিকে কোন প্যকেটে কত পিস ইয়াবা রয়েছে তার হিসেব সে নিজেই দিচ্ছে। একটি প্যাকেট খুলে গুনে দেখি তার দেয়া হিসেব মিলে গেছে। এর থেকেই বোঝা যায় সে নিজেই ইয়াবার বড় ব্যবসায়ী। তাকে আদালতে সোপর্দ করে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তার সাথে জড়িত ইয়াবা নেটওয়ার্কের পুরো গ্যাংটি ধরা সম্ভব হবে।
গৌরনদী মডেল থানার ওসি মোঃ মনিরুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় গৌরনদী হাইওয়ে থানার এ,এস,আই আসাদুল ইসলাম বাদি হয়ে গৌরনদী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেফতারকৃত ইমরানকে আদালতে সোপর্দের প্রকৃয়া চলছে। তাকে আদালতে সোপর্দ করে ৫ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.