কমলগঞ্জে আকস্মিক বন্যায় তলিয়ে গেছে কৃষকের স্বপ্ন

0
(0)

জয়নাল আবেদীন,কমলগঞ্জ
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় দফায় দফায় বন্যা ও নানা দুর্যোগের শিকার হয়েছেন নি¤œাঞ্চলের কৃষকরা। ধলাই নদীর পাঁচটি স্থানে বাঁধ মেরামত না করায় গত দু’দিনের বর্ষনে পাহাড়ি ঢলে নদীর ভাঙ্গন কবলিত স্থান দিয়ে পানি বেরিয়ে বন্যার সৃষ্টি হয়। ফলে আগাম বন্যা আর অসময়ের বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন স্থানীয় কৃষকরা।
সরজমিন গেলে দেখা যায়, নি¤œাঞ্চল মুন্সীবাজার, পতনঊষার ও শমশেরনগর একাংশ জুড়ে লাঘাটা নদীতে ঝোপজঙ্গল ও নদী ভরাট হওয়ায় দ্রুত পানি নিষ্কাষিত হচ্ছে না। ফলে কেওলার হাওরসহ গোটা এলাকায় সপ্তাহব্যাপী জলাবদ্ধতায় কৃষকের পাকা, আধা পাকা বোরো ফসল, আউশ, বীজতলা ও আমন ক্ষেত বিনষ্ট এবং চলতি আমন মৌসুমে অসময়ের বৃষ্টি ও বন্যায় উপজেলার প্রায় সাতশ হেক্টরের আমন ক্ষেত নিমজ্জিত ও ১০ হেক্টর জমির সবজি বিনষ্ট হয়েছে। এসব চাষাবাদের সাথে হাজারো কৃষক সম্পৃক্ত। এসব দুর্যোগে ব্যাপক ক্ষতি হলেও কৃষি বিভাগ সেই তালিকা প্রদান না করে অল্প পরিমাণে ক্ষয়ক্ষতি তোলে ধরে বলে কৃষকরা অভিযোগ করেন।
মৌলভীবাজার জেলার কৃষক সংগঠক আব্দুল হান্নান চিনু বলেন, অপরিকল্পিত ভাবে কৃষি ব্যবস্থা ও পানি উন্নয়নের হরিলুটের কারনে প্রতি বছর বাঁধ ভেঙ্গে বন্যা সৃষ্টি হয়। তিনি আরও বলেন, কিছু সংখ্যক কৃষক আছেন যারা কেওলার হাওরে বোরো চাষের উপর নির্ভরশীল। আবার কেউ কেউ বর্গা চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। কিন্তু বোরো ফসলে মার খাওয়ায় তারা সারা বছর ধরে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। তাদের কেউ খোঁজ খবরও নিচ্ছেন না।
কমলগঞ্জের হাওর ও নদী রক্ষা আঞ্চলিক কমিটির আহ্বায়ক মো. দুরুদ আলী বলেন, চৈত্র মাস থেকে শুরু করে দফায় দফায় বন্যার কারনে কৃষকরা নানামুখী সংকটে পড়েছেন। সাধারনত চৈত্র মাসে অকাল বন্যা আর অক্টোবর মাসে অসময়ে বন্যা হয়েছে। তিনি বলেন, ধলাই, লাঘাটা নদীর বাঁধ মেরামত, খনন ও সংস্কার, কৃষকদের প্রণোদনা সহ কয়েকটি দাবিতে মে মাসে ইউএনও’র মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত নদীর বাঁধ মেরামত না হওয়ায় কৃষকরা অসময়েও মারাত্মক ক্ষতির শিকার হচ্ছেন।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক বলেন, সার্বিক ক্ষয়ক্ষতি বিষয়ে উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে একটি প্রতিবেদন প্রেরণ করা হয়েছে। আশা করি কৃষকরা সহায়তা পাবেন।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.