হাসপাতাল দেখছেন মুখ্যমন্ত্রী, তালা বন্ধ করে রাখা হল সাংবাদিকদের !

সবুজবাংলা ডেস্কঃ কিছু দিন আগেই উত্তরপ্রদেশে গ্রেফতার হতে হয়েছিল সাংবাদিক প্রশান্ত কানোজিয়াকে। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথ যোগী সম্পর্কে ‘আপত্তিকর’ টুইট করেছিলেন। মামলাটি সুপ্রিম কোর্টে উঠলে অবশ্য রাজ্য সরকারকে ভর্ৎসনাও করেছিলেন বিতারপতি। কিন্তু তাতে যে পরিস্থিতির কোনও বদল হয়নি, তা ফের বোঝা গেল রবিবারই। আবারও সরকারের বিরুদ্ধে কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তুললেন সাংবাদিকরা।

জানা গিয়েছে, এ দিন মোরাদাবাদের জেলা হাসপাতাল ঘুরে দেখতে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথ যোগী। কিন্তু তাঁর পরিদর্শনের সময়ে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে তালা বন্ধ করে আটকে রাখা হল সাংবাদিকদের! আদিত্যনাথ হাসপাতাল ঘুরে বেরিয়ে যাওয়ার পরে সাংবাদিকদের ওয়ার্ড থেকে বার করা হয়। এই ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে মোরাদাবাদে।

সকলেই বলছেন, এমন আজব কাণ্ড যোগীর রাজ্যেই সম্ভব। রবিবার কোনও বিশেষ কারণে নয়, অন্য সপ্তাহের মতোই রুটিন ভিজ়িটে হাসপাতালে যান উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু সেই সময় উপস্থিত সাংবাদিকদের জরুরি বিভাগের একটি ঘরে তালা বন্ধ করে আটকে রাখা হয়। মোরাদাবাদ ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশ মেনে এমনটা করা হয় বলে জানা গিয়েছে।

অভিযোগ, সাংবাদিকদের আটকে রাখা ওই ঘরের বাইরে পাহারায় ছিলেন সিভিল লাইন পুলিশ স্টেশনের ইন-চার্জ নিজে। সাংবাদিকদের দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর হাসপাতাল পরিদর্শনের খবর কভার করার জন্য আগে থেকে জেলাশাসকের অনুমতি নেওয়া ছিল তাঁদের। কিন্তু তা সত্ত্বেও এই অভিজ্ঞতার মুখে পড়তে হয়েছে সংবাদমাধ্যমের কর্মীদের। কিন্তু কেন এমনটা হল, তার কারণ এখনও স্পষ্ট নয়। ঘটনার প্রতিবাদে অনেকেই সরব হয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

আদিত্যনাথ হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পরে জেলাশাসক নিজে হাসপাতালে গিয়ে তালা খুলে সাংবাদিকদের দরজা খুলে দেন বলে জানা গিয়েছে।

যদিও মোরাদাবাদের জেলাশাসক রাকেশ কুমার এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি টুইটারে জানিয়েছেন, এটা ঠিক তথ্য নয়। পরিদর্শনের সময় অনেক সাংবাদিকই ওয়ার্ডের ভিতরে ছিলেন। সংবাদকর্মীদের অনুরোধ করা হয়েছিল তাঁরা যেন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ওয়ার্ডের ভিতরে না-ঢোকেন। দ্য ওয়াল