গৌরনদীতে আইনজীবিকে মারধর

গৌরনদী প্রতিনিধি
বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের গৌরনদী বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় এক আইনজীবির ওপর হামলা চালিয়ে তাকে মারধর ও ব্যাবহৃত মোটরসাইকেলটি ছিনতাইয়ের চেষ্টা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। পুলিশ ও ব্যবসায়ীদের প্রতিরোধের মুখে ছিনতাইয়ে ব্যার্থ হয়ে পালিয়েছে তারা। এ ঘটনায় শনিবার রাতে গৌরনদী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে সজল মাল (২৪) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শী, পুলিশ ও আহত আইনজীবি সূত্রে জানাগেছে, পার্শ্ববর্তি উজিরপুর উপজেলা সদরের রাখাল তলা এলাকার বাসিন্ধা এ্যাডভোকেট মোহাম্মদ নাজমুল হক বেপারী রাজধানী ঢাকায় থাকেন। তার পরিবার থাকে বরিশাল শহরে। পরিবারের সাথে সাক্ষাত করতে শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে নিজের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি যোগে তিনি বরিশালের উদ্দেশ্যে রওনা হন। পথিমধ্যে ওইদিন বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তিনি বরিশাল-ঢাকা মহাসড়কের মাদারীপুরের মস্তফাপুর বাসষ্ট্যান্ড এলাকা অতিক্রমকালে অপর একটি মোটরসাইকেল নিয়ে তিন যুবক তার গতিরোধ করার চেষ্টা চালায়। আইনজীবি নাজমুল হক বেপারী তখন দ্রুত গতিতে বরিশালের দিকে ছুটে চলেন। ওই তিন যুবক তখন পিছু ধাওয়া করে ছুটে এসে ওইদিন সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে গৌরনদী বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় আইনজীবির গতিরোধ করে তাকে মারধোর করে তার ব্যাবহৃত মোটরসাইকেলটি ছিনতাই করে নেয়ার চেষ্টা চালায়। এ সময় বাসষ্ট্যান্ডে অবস্থানরত ট্রাফিক পুলিশ ও স্থানীয় ব্যবসায়ীরা তাকে রক্ষায় এগিয়ে এলে ছিনতাইয়ের চেষ্টাকারীরা তাদের নিজেদের ব্যাবহৃত মোটরসাইকেলটিযোগে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ও স্থানীয় ব্যবসায়ীরা সেখান থেকে মারাতœক আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গৌরনদী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ গোলাম সরোয়ার জানান, ঘটনার সাথে জড়িত ওই তিন যুবক এলাকায় খুব খারাপ ছেলে হিসেবে পরিচিত। তারা ছিনতাই, চাঁদাবাজী ও এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনাসহ নানা অপরাধের সাথে যুক্ত। আহত এ্যাডভোকেট মোহাম্মদ নাজমুল হক বেপারী বাদি হয়ে এ ঘটনায় গৌরনদী উপজেলার বড় কসবা গ্রামের মাওলানা মালের ছেলে সজল মাল (২৪), কসবা গো-হাট সংলগ্ন এলাকার বাসিন্ধা হানিফ বাবুর্চির ছেলে আল আমিন (২২), ও ছালেক হাওলাদারের ছেলে মটু আল আমিন (২৩)কে আসামী করে শনিবার রাতে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এরপর পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত সজল মাল (২৪)কে গ্রেফতার করেছে। অপর দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতারে পুলিশ জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।