নিউইয়র্কে শুরু বিশ্ব সিলেট সম্মেলন

0
(0)

স্টাফ রিপোর্টার

শেষ গ্রীষ্মের চমৎকার আবহাওয়ায় বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সিলেট অঞ্চলের মানুষজনের মিলনমেলা বসেছে আমেরিকার নিউইয়র্ক নগরীতে। বাঙালি অধ্যুষিত কুইন্সের জ্যামাইকার ইয়র্ক কলেজ প্রাঙ্গণে শুরু হয়েছে দু দিনব্যাপী বিশ্ব সিলেট সম্মেলন।  রবিবার শেষ হবে এ সম্মেলন।

শনিবার স্থানীয় সময় সকাল ১১টায় মার্কিন কংগ্রেসের সদস্য গ্রেস মেং, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট চেয়ারম্যান হাফিজ আহমেদ মজুমদার, বাংলাদেশের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী, জাতীয় অধ্যাপক শায়লা খাতুন, ঢাকা জালালাবাদ সমিতির সভাপতি সি এম তোফায়েল সামি, অর্থনীতিবিদ ড. মোহাম্মদ খলীকুজ্জমান, মেজর জেনারেল (অব.) আজিজুর রহমান, অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক ডা. জিয়াউদ্দিন আহমেদ, যুগ শঙ্খ পত্রিকার মুখ্য সম্পাদক বিজয় কৃষ্ণ নাথ, গুয়াহাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলার প্রধান অমলেন্দু চক্রবর্তী, অলইন্ডিয়া শ্রীহট্ট সম্মিলনীর সভাপতি কৃষ্ণা দাস, দক্ষিণ কলকাতা সিলেট অ্যাসেশিয়েসনের ডা.দীপ্তা দে সহ সহ অন্যান্য অতিথি ও আয়োজকেরা বেলুন উড়িয়ে সিলেট বিশ্ব সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমেরিকা, বাংলাদেশ ও ভারতের জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। সবার জন্য উন্মুক্ত সিলেট বিশ্ব সম্মেলনের আয়োজন এবং ব্যবস্থাপনায় রয়েছে নিউইয়র্কের জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন।

উদ্বোধনি অনুষ্টানে বিশ্ব সম্মেলনের আয়োজন নিয়ে সন্তুষ্টির কথা জানালেন সংগঠনের সভাপতি বদরুল হোসেন খান। তিনি বলেন, নানা সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও জালালাবাদ সিলেট বিশ্ব সম্মেলন নিয়ে প্রবাসীদের উৎসাহ আমাদের অনুপ্রাণিত করছে।

মার্কিন কংগ্রেসের সদস্য গ্রেস মেং বলেন, সবাইকে স্বাগত। যারা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আমাদের এই প্রিয় শহর, প্রিয় এই দেশে এসেছেন।

রাশেদা কে চৌধুরী বলেন, আমরা এই বিশ্ব সম্মেলনকে মনেপ্রানে গ্রহণ করেছি। কলকাতা দিয়ে যা শুরু হয়েছিল আজ তা নিউইয়র্কে।

ডা.দীপ্তা দে বলেন, আমরা খুশি ও আনন্দিত। ইন্দো-বাংলা সিলেট উৎসব আমরা কলকাতা য় শুরু করেছিলাম তার পথ ধরেই আজ বিশ্ব সিলেট সম্মেলন।

বাংলাদেশের কোনো বিশেষ অঞ্চল নিয়ে এমন একটি বিশ্ব সম্মেলন রীতিমতো আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদকজেড চৌধুরী জুয়েল বলেন, সব জায়গা থেকে ব্যাপক সহযোগিতা পাওয়া গেছে। এ বিশ্ব সম্মেলনের মাধ্যমে সিলেট অঞ্চলের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা নিয়েসম্মিলিত আওয়াজ উঠবে বলে তিনি প্রত্যাশা করেন।

 

বিশ্ব সিলেট সম্মেলন আহ্বান “আয় প্রাণের মাঝে যায়”। সংস্কৃতির অবগাহনে ঐতিহ্যের পুনর্জাগরণ নিয়ে কথা বলবেন সম্মেলনে আগত বিশিষ্ট লোকজন। সম্মেলনে আমেরিকাসহ বাংলাদেশ, ভারত, কানাডা, যুক্তরাজ্য, জাপান, জার্মানি, মধ্যপ্রাচ্য, মালয়েশিয়া ও অন্যান্য দেশ থেকে অনেকেই অংশ নিচ্ছেন। সম্মেলনে সংগীত, নৃত্য, মিলন মেলা, আত্মকথা, পরিচিতি, শুভেচ্ছা বিনিময়, প্রজন্মের অনুভূতি, শিকড়ের সন্ধানে, সিলেটী খাবার ও অন্যান্য স্টল আছে। ঐতিহ্যের ও সংস্কৃতির আয়োজনে ভরপুর থাকবে পুরো দু দিনের অনুষ্ঠান।

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Average rating 0 / 5. Vote count: 0

No votes so far! Be the first to rate this post.